Tinpahar
No Comments 14 Views

ম্যাজিক কারচুপি !

সারা দেশের মত এই রাজ্যেও এখন বইছে ভোটের হওয়া। রাজ্যের রাস্তাতেও দেখা যাছে রাজনৈতিক নেতাদের। আর ভোটের আগে তারা সাভাবিক ভাবেই বড় আমায়েক। রাজ্যে এই ভোট জনগনের আরো প্রাপ্তি ,এইবার রাজনৈতিক দল গুলির পার্থী তালিকায় অন্যান বারের থেকে একটু বেশিই তারকা পার্থী। তারকা সে যে নামেই ডাকো ,সে তো তারকাই। তাই ভোট চাইতে আসা তারকা পার্থী কে চোখের দেখা দেখতে সাধারণ মানুষের ভীড় উপচে পড়ছে রাজনৈতিক দল গুলির সভাগুলিতে। মুখস্থ করে যাদের বলা অভ্যাস তারা সরাসরি জনসভায় স্বভাবতই  খেই হারাছেন ,বলে ফেলছেন মনের কথা। মনের কথা গুলি  নাকি ‘নন-পার্লামেন্টারী ‘, তাই রাজনৈতক সংঘর্ষ ছাড়াও এমন বহু অভিযোগ জমা পরছে। এই সব  অভিযোগের ভিত্তি ও ভিত্তিহীনতার সত্যতা যাচাই করতে নির্বাচন কমিশন ও রাজনৈতিক দল গুলির মধ্যে ‘শো কজ’ চিঠি চালাচালি এক নিত্য দিনের ঘটনা। কিন্তু সেদিন নির্বাচন কমিশনের দপ্প্তরে যে অভিযোগ জমা পড়েছে তা বিস্ময়কর। গুরুতর না হাস্যকর তা নিয়ে দন্দে পড়েছে কমিশন। বারাসাত লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি পার্থী র বিরুদ্ধে অভিযোগ। জুনিয়ার পি.সি সরকারের  বিরুদ্ধে অভিযোগ। না এই প্রতিবেদন জাদুকরের করা অশালীন মন্তবের জন্য জমা পরা কোনো অভিযোগ এর বিষয়ে নয়। আজ যখন ভোট গ্রহনের আর মাত্র এক দিন বাকি তখন মোদি হওয়াই আত্মবিশ্বাসী জাদুকরের বিরুদ্ধে এক নতুন অভিযোগ নিয়ে কমিশন এর দারস্থ হয়েছে অন্যান রাজনৈতিক দল গুলি। এই অভিযোগ এক অদ্ভুত আশঙ্কা থেকে ,অভিযোগ বড়ই গুরুতর। পূর্বে যখন ব্যালটে ভোট হতো  তখন ভোট কারচুপির বহু সুযোগ ছিল। এখন তো যুগ প্রযুক্তির তাই সেই সব সুযোগ আজ অনেকটাই কম। কিন্তু তাজমহল ভ্যানিশ হলে আমরা কি বলব! হা ঠিক ,এইখানেই অভিযোগ বিরোধী দল গুলির। ম্যাজিক। ম্যাজিক এর দ্বারা ভোট কারচুপি হতে পারে বলেআশঙ্কা করছে সি.পি.এম ,তৃনমূল ও কংগ্রেস এর মত তামাম  রাজনৈতিক দল গুলি। নির্বাচন কমিশন এর দারস্থ হয়ে তাই এই আশঙ্কার কথা পৃথক ভাবে জানিয়েছে প্রতিটি রাজনৈতিক দল।

তারদের সংকিত কন্ঠে যা শোনা গেল তা এইরকোম , একজন ভোটার তার ইচ্ছে অনুযাই ই.ভি.এম  এর নীল্  বোতাম টিপে ভোট দেবেন ,কিন্তু ম্যাজিক বলে যেকোনো দল র জন্য নির্দিষ্ট বোতামটি (ভোটার হিসাবে ) যথাক্রমে বি.জ.পি র জন্য নিদিষ্ট বোতামে পরিবর্তিত হয়ে যাবে ,এর ফলে জনৈক ভোটার যে বোতামই  টিপুন না কেন ভোট পড়বে বি.জে.পি তেই।   আবার এই রকম ও আশঙ্কা  করা হছে যে, ভোটাররা এ.ভি.এম  কক্ষে  প্রবেশ করলে তারা বি.জ.পি র জন্য নিদিষ্ট বোতামেকে যথাক্রমে সি.পি.এম ,তৃনমূল ও কংগ্রেসএর বোতাম বলে ভুল করবে,আর এইসব এই হবে জাদুকরের মন্ত্র বলে। এর ফলে বি.জ.পি র জয় নিশ্চিত হয়ে যাবে। রাজ্যের বুদ্ধিজীবি মহল প্রশ্ন করেছে এ কি করে সম্ভব , উত্তরে রাজনৈতিক দল গুলি জানিয়েছে যে মন্ত্রে তাজমহল অদৃশ্য হয়  সেই মন্ত্রীই ভোট কারচুপি হবে।ইতিমধ্যে শহরের রাস্তায় লাগানো বিভিন্ন ব্যনার পোস্টার বদল হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। তাই বিষয়টি নিয়ে যথেষ্ট উদ্বিগ্ন সব রাজনৈতিক দল গুলি।

এই অভিযোগ পেয়ে নির্বাচন কমিশন পড়েছে মহা মুশকিলে।ম্যাজিক যে মানুষের চোখের আর মনের ভুল ,প্রযুক্তি দ্বারা তা ঠেকায় কি করে। এদিকে বি.জ.পি র পক্ষ থেকে সাংবাদিক সম্মেলন করে বিরধেদের এই আশংকা ভিত্তিহীন বলে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। অথচ উক্ত সাংবাদিক সম্মেলনে বি.জ.পি নেতাদের ঠোটের কোনে মুচকি হাসি বিরোধীদের আরো চিন্তিত করেছে।

About the author:
Has 214 Articles

LEAVE YOUR COMMENT

Your email address will not be published. Required fields are marked *

RELATED ARTICLES

Back to Top